কানাডায় মুসলিম পরিবারকে হত্যা, মুসলিম হওয়াই আসল কারণ জানিয়েছে পুলিশ

0
9

কানাডার লন্ডনে এক মুসলিম পরিবারকে হত্যা করেছে এক সন্ত্রাসী। ট্রাক চাপায় এক পরিবারের ৪ জন নিহত, যার মধ্যে ১৫ বছর বয়সী এক মেয়ে ছিল। এছাড়াও ৯ বছর বয়সী এক ছেলে শিশু মারাত্মকভাবে আহত হয়। এ হত্যাকাণ্ডে নাথানিয়েল ভেলটম্যান নামে একজন সন্দেহভাজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশ জানায়, এ হত্যাকাণ্ডের পেছনে আসল কারণ ছিল মুসলিম বিদ্বেষ। হত্যাকারী একজন ইসলামবিদ্বেষী ছিলেন বলেই পুলিশ জানায়।

লন্ডনের পুলিশ প্রধান স্টিভ উইলিয়ামস সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, “তদন্ত চলাকালীন সংগৃহীত তথ্যের ভিত্তিতে আমরা বিশ্বাস করি যে এটি একটি উদ্দেশ্যমূলক কাজ ছিল এবং এই ভয়াবহ ঘটনার শিকার ব্যক্তিদের লক্ষ্যবস্তু করা হয়েছিল।” সোমবার লন্ডনের পুলিশ প্রধান স্টিভ উইলিয়ামস সাংবাদিকদের আরো জানিয়েছেন, “আমরা বিশ্বাস করি যে ক্ষতিগ্রস্থরা তাদের ইসলামিক বিশ্বাসের কারণে তাদের লক্ষ্যবস্তু করা হয়েছিল।” লন্ডনের মেয়র এড হোল্ডার তিন দিনের শোকের জন্য সিটি হলের বাইরে পতাকা নামানোর নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, “আমাকে স্পষ্ট করে বলুন, এটি ছিল লন্ডনবাসীদের বিরুদ্ধে,মুসলমানদের বিরুদ্ধে, গণহত্যার একটি কাজ এবং অবর্ণনীয় বিদ্বেষের গোঁড়াপত্তন।” কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো একটি টুইট বার্তায় বলেছেন যে এই সংবাদ দ্বারা তিনি এই ঘটনায় “মারাত্মকভাবে আতঙ্কিত”। তিনি লিখেছিলেন, “লন্ডনের মুসলিম সম্প্রদায়ের জন্য এবং সারা দেশের মুসলমানদের জন্য, জেনে রাখুন যে আমরা আপনার সাথে রয়েছি।” “আমাদের কোনও সম্প্রদায়ের মধ্যে ইসলামবিদ্বেষের কোনো স্থান নেই। এই বিদ্বেষ কুখ্যাত এবং ঘৃণ্য – এবং এটি বন্ধ হওয়া উচিত।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর টুইট