বন্ধ হচ্ছে এখানেই ডটকম আজ থেকেই

0
1149

বাংলাদেশে ব্যবসা লাভজনক ও টেকসই না হওয়ায় আজ বুধবার থেকে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে শ্রেণিবদ্ধ বিজ্ঞাপনের ওয়েবসাইট এখানেই ডটকম (www.ekhanei.com)। আর এ ঘোষণা এসেছে আকস্মিকভাবেই। টেলিনর, স্কিবিস্টেড ও ন্যাসপারের যৌথ মালিকানায় পরিচালিত এই প্রতিষ্ঠান বন্ধের সংবাদ ১৫ মে টেলিনরের ওয়েবসাইটে এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়।
এখানেই ডটকমের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) শৈলেন্দ্র নাথানও মুনাফা অর্জনে ব্যর্থ হওয়ার কথা স্বীকার করে গতকাল মঙ্গলবার প্রথম আলোকে ই-মেইলে জানিয়েছেন, ক্লাসিফায়েড (শ্রেণিবদ্ধ বিজ্ঞাপন) বাজারের সার্বিক অবস্থা, দীর্ঘমেয়াদি সম্ভাব্যতা ও মুনাফা অর্জনে অকার্যকারিতার কারণে মালিকপক্ষের সম্মিলিত সিদ্ধান্তে এখানেই ডটকম তাৎক্ষণিকভাবে বাংলাদেশে কার্যক্রম বন্ধ করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, প্রায় ৫০ জন কর্মী চাকরি করেন এখানেই ডটকমে। প্রতিষ্ঠানের নীতিমালা এবং স্থানীয় নীতিমালা অনুযায়ী কর্মীদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে বলে সিইওর ই-মেইলে উল্লেখ করা হয়েছে।
২০০৫ সালে চালু হওয়া সেলবাজারকে ২০১০ সালে টেলিনর অধিগ্রহণ করে নেয়। পরে ২০১৪ সালের জুন মাসে নাম পরিবর্তন করে ‘এখানেই ডটকম’ নিয়ে নতুনভাবে যাত্রা শুরু করে শ্রেণিবদ্ধ বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে নানা রকম পণ্য বেচাকেনার এই ওয়েব পোর্টাল। তবে ব্যবসায় অংশীদার হিসেবে যুক্ত করা হয়েছিল আরও কয়েকটি প্রতিষ্ঠানকে।
২০১৩ সালে স্কিবিস্টেডকে সঙ্গে নিয়ে এসএনটির ৫০ শতাংশ মালিকানা কিনে অনলাইনভিত্তিক ক্লাসিফায়েড ব্যবসায় নামে টেলিনর। এ ছাড়া ৭০১ সার্চ নামের একটি প্রতিষ্ঠানের ৩৩ দশমিক ৩৩ শতাংশ মালিকানা কেনে। ২০১৫ সালে ন্যাসপারের সঙ্গে যৌথভাবে চারটি দেশে ক্লাসিফায়েড ব্যবসায় বিনিয়োগ করে টেলিনর। এর একটি ছিল বাংলাদেশ। এ দেশে এসএনটির মাধ্যমে এখানেই ডটকমের ২৫ শতাংশ সরাসরি মালিকানা ছিল টেলিনরের। বাংলাদেশে এখানেই ডটকম বন্ধ হলেও অন্যান্য দেশে এই ব্যবসা চালু রাখবে বলে নিজেদের ওয়েবসাইটে জানিয়েছে টেলিনর।
বাংলাদেশে নতুন ধারণা হিসেবে ২০০৫ সালে ওয়েব এবং মোবাইল ফোনের খুদে বার্তাভিত্তিক শ্রেণিবদ্ধ বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে পণ্য কেনাবেচার সেবা চালু করে সেলবাজার। গ্রামীণফোনের গ্রাহকেরা এটি ব্যবহার করতে পারতেন। সেলবাজার ব্র্যান্ড হিসেবে দ্রুত পরিচিতি পেতে থাকে এবং ব্র্যান্ড হিসেবেও জনপ্রিয় হতে থাকে। মোবাইল ফোনভিত্তিক অর্থ লেনদেন সেবা বিকাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবং সেলবাজারের প্রতিষ্ঠাতা কামাল কাদির গতকাল প্রথম আলোকে বলেন, ‘২০১০ সালে সেলবাজার টেলিনরের কাছে বিক্রি করে দেওয়ার সময় এর ৪৫ লাখ সক্রিয় ব্যবহারকারী ছিল। এ রকম ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে ব্র্যান্ড নাম সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। সেলবাজার নামটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।’ সঠিক পরিচর্যার অভাব ও নতুন নামকরণ এখানেই ডটকমের বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণ হতে পারে বলে তিনি মনে করেন।