ভর্তিতে জিপিএ-৫ থাকবে কিনা, ভাবছে সরকার

0
1296

বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির ক্ষেত্রে জিপিএ-৫ প্রি-কোয়ালিফিকেশন হিসেবে যোগ না করার বিষয়টি নিয়ে চিন্তা-ভাবনা করছে সরকার। বুধবার (৭ মার্চ) সচিবালয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের নেতৃত্বে প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে অনুষ্ঠিত রুদ্ধদ্বার বৈঠক শেষে বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য জানান শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন।

দেশের বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির ক্ষেত্রে জিপিএ-৫ প্রি-কোয়ালিফিকেশন হিসেবে গ্রহণ করার বিষয়ে ভিন্নমত দিয়ে সোহরাব হোসাইন বলেন, ‘ভর্তিতে জিপিএ-৫ প্রিভিয়াস নম্বর হিসেবে যোগ না করে সরাসরি পরীক্ষা নিয়ে ফলের মাধ্যমে ভর্তি করানো যায় কিনা তা নিয়ে চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘পরীক্ষার্থীরা জিপিএ-৫ না পেয়ে ভর্তি হতে পারছে না। অভিভাবকরাও মরিয়া হয়ে উঠছেন। কারণ, জিপিএ-৫ না পেলে তাদের সন্তান তো কোথাও ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাচ্ছে না। বুয়েট বা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ই হোক অথবা যেকোনও বিশ্ববিদ্যালয়ই হোক জিপিএ-৫ প্রি-কোয়ালিফিকেশন হওয়ার কারণে অনেকেই ভর্তি হওয়ার ক্ষেত্রে সুযোগ পাচ্ছে না। এটা নিয়ে ভাবা দরকার আছে। প্রিভিয়াস নম্বর হিসেবে যোগ না করে সরাসরি পরীক্ষা নেওয়া যায় কিনা ভাবতে হবে। এছাড়া, গুচ্ছ পরীক্ষা নিয়েও একটি আলোচনা রয়েছে।’

মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, জিপিএ-৫ পাওয়ার নিশ্চয়তা পেতেই প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো ঘটনায় অভিভাবকরা পর্যন্ত যুক্ত হচ্ছেন। ভর্তি পরীক্ষায় সুযোগ পাওয়ার জন্য প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো ঘটনা মহামারি হিসেবে দেখা দিয়েছে।

এ বিষয়ে সচিব বলেন, ‘প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে একটি সুনির্দিষ্ট বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে বন্ধ করা যাবে না। সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। সব মিলিয়ে সবার প্রচেষ্টা যদি থাকে, তাহলে সম্ভব হবে।’

বুধবার দুপুরে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সঙ্গে সোহরাব হোসাইন ছাড়াও অংশ নেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) অধ্যাপক মোহাম্মদ কায়কোবাদ, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) অরুনা বিশ্বাস, অতিরিক্ত সচিব জাভেদ আহমেদ প্রমুখ।